Category Archives: ইসলামের শিক্ষা

আল্লাহ কি বিচারকদের মধ্যে শ্রেষ্টতম বিচারক নন?

“আল্লাহ কি বিচারকদের মধ্যে শ্রেষ্টতম বিচারক নন?”
…[সূরা আত-ত্বীন, আয়াত ৮]

আয়াতটির ব্যাখ্যা:

যখন দুনিয়ার ছোট ছোট শাসকদের থেকেও তোমরা চাও এবং আশা করে থাকো যে, তারা ইনসাফ করবে, অপরাধীদেরকে শাস্তি দেবে এবং ভালো কাজ যারা করবে তাদেরকে পুরস্কৃত করবে তখন আল্লাহর ব্যাপারে তোমরা কি মনে করো? তিনি কি সব শাসকের বড় শাসক নন? যদি তোমরা তাঁকে সবচেয়ে বড় শাসক বলে স্বীকার করে থাকো তাহলে কি তাঁর সম্পর্কে তোমরা ধারণা করো যে, তিনি ইনসাফ করবেন না? তাঁর সম্পর্কে কি তোমরা এই ধারণা পোষণ করো যে, তিনি মন্দ ও ভালোকে একই পর্যায়ে ফেলবেন? তোমরা কি মনে করো তাঁর দুনিয়ায় যারা সবচেয়ে খারাপ কাজ করবে আর যারা সবচেয়ে ভালো কাজ করবে তারা সবাই মরে মাটির সাথে মিশে যাবে। কাউকে তার খারাপ কাজের শাস্তি দেয়া হবে না এবং কাউকে তার ভালো কাজের পুরস্কারও দেয়া হবে না?

ইমাম আহমাদ, তিরমিযী, আবু দাউদ, ইবনুল মুনযির, বায়হাকী, হাকেম ও ইবনে মারদুইয়া হযরত আবু হুরাইরা (রা) থেকে একটি হাদীস বর্ণনা করেছেন। রসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহ আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেনঃ তোমাদের কেউ যখন “ওয়াত তীনি ওয়ায্যাইতূনি” সূরা পড়তে পড়তে (اَلَيۡسَ اللّٰهُ بِاَحۡكَمِ الۡحٰكِمِيۡنَ ) আয়াতটিতে পৌঁছে তখন যেন সে বলে। (وَاَنًا عاى اج ذالِكَ مِنَ اشَّا هِدِيْنَ ا ) (হ্যাঁ, এবং আমি তার ওপর সাক্ষদানকারীদের একজন)। আবার কোন কোন হাদীসে বলা হয়েছে নবী সাল্লাল্লাহ আলাইহি ওয়া সাল্লাম যখন এই আয়াতটি পড়তেন, তিনি বলতেন, (سُبْحانَكَ فَبَآى) (হে আল্লাহ তুমি পবিত্র! আর তুমি এই যা বলছো তা সত্য।)

[তাফসীর: তাফহীমুল কুরআন]

Advertisements
ছবি

দেয়ালচিত্র ২৬

দেয়ালচিত্র ২৬

নুমান আলী খান বাংলা – ইউটিউব চ্যানেল ও ওয়েবসাইট

উস্তাদ নুমান আলী খানের লেকচারগুলোর বাংলা ডাবিং করা ভিডিও আলোচনা অসাধারণ একটি উদ্যোগ মাশাআল্লাহ। আল্লাহ উদ্যোক্তাদের কাজটিকে কবুল করে নিন এবং তাতে বারাকাহ দিন।

# নুমান আলী খান বাংলা – ওয়েবসাইট লিঙ্ক : http://www.nakbangla.com/

# নুমান আলী খান বাংলা – ইউটিউব চ্যানেল: https://www.youtube.com/user/NAKBangla

# ফেসবুক পেজ: www.facebook.com/NAKbangla

ভিডিওগুলো দেখতে এবং শেয়ার করতে ভুলবেন না। উস্তাদ নুমান আলী খানের আলোচনার বিশেষত্বই হলো সেটা সরাসরি কুরআনের আলোকে; বিশেষ করে কুরআনের শব্দালংকার ও ভাষাগত সৌন্দর্যের আলোকে…

আল্লাহ আমাদের মাঝে কুরআনের প্রতি ভালোবাসা জাগিয়ে দিন এবং কুরআনকে আমাদের জন্য সহজ করে দিন। আল্লাহ আমাদের কুরআনভিত্তিক প্রজন্ম গড়ার তাওফিক দান করুন। আমিন।

ঈমানী দুর্বলতা : শাইখ মুহাম্মাদ সালিহ আল-মুনাজ্জিদ

eemani_durbolota
বইটার দাম ৩০ টাকার মতন। কিন্তু এরকম রত্নের টুকরা টাইপের জিনিস না পড়া একটা বোকামি এবং অনুচিত কাজ। অবশ্যই পড়া উচিত এই বই। ঈমানের ফকিন্নি টাইপের অবস্থা নিয়ে দুনিয়ার ডিগ্রি, টাকা-পয়সা, সম্মান-খ্যাতি, রূপ-সৌন্দর্য, সুখের সংসারের কোনই মূল্য নাই। দুনিয়া পেয়ে আখিরাত হারানোর কোনই মূল্য নেই। আবার, সেই চরম দুর্ভাগা হয়েও লাভ নেই, যারা আখিরাত এবং দুনিয়া উভয়ই হারালো…

বইটিতে উল্লেখ আছে —

অন্তঃকরণের বিষয়টি খুবই স্পর্শকাতর এবং গুরুত্বপূর্ণ। অন্তঃকরণকে আরবিতে কালব (পরিবর্তনশীল) বলা হয়েছে এ কারণেই যে, তা দ্রুত পরিবর্তনশীল। রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেনঃ

“অন্তঃকরণকে কালব বলা হয়েছে বেশি বেশি পরিবর্তন হবার কারণে। অন্তঃকরণের উদাহরণ হলো একটি পাখির পালকের মত যা গাছের ডালে ঝুলানো আছে, বাতাসে সেটিকে এদিকে সেদিকে ঘুরাচ্ছে”। [আহমাদ ৪/৪০৮, সহীহ আল জামে ২৩৬৫]

প্রথম অধ্যায় : দুর্বল ঈমানের বহির্প্রকাশঃ

১) পাপে নিমজ্জিত হওয়া এবং হারাম কাজ করা
২) অন্তকরণে কাঠিন্য অনুভব করা
৩) ভালোভাবে ইবাদাত না করা
৪) আনুগত্য ও ইবাদাতে শৈথিল্যতা ও অলসতা প্রদর্শন করা
৫) মেজাজের ভারসাম্যহীনতা এবং বক্ষের অপ্রশস্ততা
৬) কুরআনের আয়াত দ্বারা প্রভাবিত না হওয়া
৭) আল্লাহর স্মরণ ও তাঁর প্রার্থনার ব্যাপারে গাফেল থাকা
৮) কোনো হারাম কাজ সংঘটিত হতে দেখলেও ক্রোধের সঞ্চার না হওয়া
৯) নিজেকে প্রকাশ করতে ভালোবাসা
১০) কৃপণতা
১১) কথা ও কাজে গরমিল
১২) মুসলমান ভাইয়ের বিপদ দেখলে খুশি হওয়া
১৩) শুধুমাত্র কাজটি অপছন্দনীয় কিনা দেখা
১৪) ভালো কাজকে তুচ্ছজ্ঞান করা নেকীর কাজকে গুরুত্ব না দেয়া
১৫) মুসলমানদের সমস্যার ব্যাপারে গুরুত্ব না দেয়া
১৬) ভ্রাতৃত্বের বন্ধন ছিন্ন করা
১৭) দ্বীনের কাজে দায়িত্বানুভূতি না থাকা
১৮) বিপদাপদে ভীত সন্ত্রস্ত হওয়া
১৯) অনর্থক ঝগড়া-বিবাদ ও তর্ক-বিতর্ক করা
২০) দুনিয়ার প্রতি আকর্ষণ ও এর প্রতি ঝুঁকে পড়া
২১) জনশ্রুতিকে বর্ণনার জন্য গ্রহণ করা
২২) নিজেকে নিয়ে বেশি ব্যস্ত থাকা।

বিস্তারিত পড়ুন

লাববাইক আল্লাহুম্মা লাববাইক

আজ হজের দ্বিতীয় দিন। তিরিশ লক্ষাধিক হাজী ইহরাম পরিহিত অবস্থায় ছুটছেন আরাফাতের ময়দানের দিকে, হজের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ফরযটি আদায় করার জন্য। আজকের দিনে আরাফাতের ময়দানে যুহরের ওয়াক্তে যুহর ও আসরের নামায পরপর আদায় করা রাসুলুল্লাহ (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম)-এর একটি সুন্নাহ। নামায আদায়ের পর থেকে নিয়ে সূর্যাস্তের পূর্ব পর্যন্ত সময়টা হাজী সাহেবরা কাটাবেন দু’আ আর যিকরের মাধ্যমে। আজকের দিনটি হল আল্লাহর কাছে কান্নাকাটি করার দিন, অতীত জীবনের সমস্ত গুনাহ মাফ করিয়ে নেয়ার দিন। সূর্যাস্তের পর হাজী সাহেবরা মুযদালিফার উদ্দেশ্যে রওনা দেবেন এবং সেখানে পৌঁছে ইশার ওয়াক্তে মাগরিব ও ইশার নামায পরপর আদায় করবেন। রাতে তাঁরা বিশ্রাম নেবেন মুযদালিফার মরুপ্রান্তরে, খোলা আকাশের নিচে।

“লাববাইক আল্লাহুম্মা লাববাইক, লাববাইকা লা শারীকা লাকা লাববাইক, ইন্নাল হামদা ওয়ান্নি’মাতা লাকা ওয়াল মুলক, লা শারীকা লাকা।’’

لَبَّيْكَ اللَّهُمَّ لَبَّيْكَ لَا شَرِيكَ لَكَ لَبَّيْكَ إِنَّ الْحَمْدَ وَالنِّعْمَةَ لَكَ وَالْمُلْكَ لَا شَرِيكَ لَكَ

“আমি হাজির, হে আল্লাহ আমি হাজির, আমি আপনার কাছে হাজির। আপনার কোন শরীক নেই। আমি আপনার কাছে হাজির। নিশ্চয়ই সকল প্রশংসা, অনুগ্রহ ও রাজত্ব আপনারই। আপনার কোন শরীক নেই।”

সেরা মহিলাদের গুণাবলী : ইমাম আনওয়ার আল আওলাকী

ইমাম আনওয়ার আল আওলাকীর আলোচনায় ইসলামের চার সেরা মহিলা — মাত্র ১০ মিনিটের একটা ক্লিপ। মুসলিমাহ বোনদের জন্য অনেক উপকারী হবে ইনশাআল্লাহ। কতই না সুন্দর আলোচনা!

  • খাদিজা রাদিয়াল্লাহু আনহা
  • মারিয়াম আলাইহিস সালাম
  • আসিয়া আলাইহিস সালাম
  • ফাতিমা রাদিয়াল্লাহু আনহা

কোন গুণাবলী তাদের মর্যাদা অত উঁচুতে তুলেছে? ক্যারিয়ার? জ্ঞান? এমনকি তারা তাদের অ্যাক্টিভিজমের জন্যও বিখ্যাত নন। তাদের মাঝে ছিলোঃ

  • স্পিরিচুয়ালিটি[মজবুত ঈমান]
  • দ্বীনের জ্ঞান
  • তারা একেকজন ছিলেন সেরা স্ত্রী, সেরা মা, সেরা মেয়ে

মুসয়াব ইবন উমাইর রাদিয়াল্লাহু আনহু


পিতা-মাতার পরম আদরে ঐশ্বর্যের মধ্যে লালিত মক্কার অন্যতম সুদর্শন যুবক ছিলেন তিনি। মা সম্পদশালী হওয়ার কারণে অত্যন্ত ভোগ-বিলাসের মধ্যে তাঁকে প্রতিপালন করেন। তখনকার যুগে মক্কার যত রকমের চমৎকার পোষাক ও উৎকৃষ্ট খুশবু পাওয়া যেত সবই তিনি ব্যবহার করতেন। রাসূলুল্লাহর (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) সামনে কোনভাবে তার প্রসঙ্গ উঠলে বলতেনঃ “মক্কায় মুসআবের চেয়ে সুদর্শন এবং উৎকৃষ্ট পোষাকধারী আর কেউ ছিল না।” (তাবাকাত) ঐতিহাসিকেরা বলেছেনঃ “তিনি ছিলেন মক্কার সর্বোৎকৃষ্ট সুগন্ধি ব্যবহারকারি।”
বিস্তারিত পড়ুন